More
    Home কলমেই মুক্তি প্রাথমিক শিক্ষা ও প্রতিবন্ধকতা

    প্রাথমিক শিক্ষা ও প্রতিবন্ধকতা

    মোঃ মেহেদী হাসান : প্রাথমিক শিক্ষার এক সময় প্রধান প্রতিবন্ধকতা ছিল শিক্ষার জন্য অর্থ। বর্তমানে এটির অবসান হলেও নতুন ভাবে পাকাপোক্ত স্থান করে নিয়েছে পারিবারিক অস্বচ্ছলতা যার মূলে রয়েছে শিশুশ্রম, তার সাথে শিক্ষার উপযুক্ত পরিবেশ এবং শিক্ষায় মানুষের অবস্থা কেন্দ্রীক শ্রেণী বিন্যাস। প্রথমত পারিবারিক অসচ্ছলতার কথা বলা যাক,যার সাথে “শিশুশ্রম” ওতপ্রোত ভাবে জরিত।

    এটি বর্তমানে প্রাথমিক শিক্ষার প্রধান প্রতিবন্ধকতা হয়ে দাড়িয়েছে । কারণ বর্তমানে শিক্ষার্থীরা শিক্ষার সুযোগ বিনা খরচে পেলেও পরিবার আর্থিকভাবে অস্বচ্ছল হওয়ায় দেশের বেশিরভাগ শিশুই শিশুশ্রমের সাথে জরিত। ফলে শিশুরা দৈনিক পরিশ্রম করার পর শিক্ষা গ্রহণে যেমন কম আগ্রহী হয় তেমনি কেউ কেউ আগ্রহী থাকলেও তার ওপরে থাকে মালিকের অধিক কাজের চাপ এবং পরিবারের বোঝা। এমনকী অনেক শিশুর আয়ের ওপর তার পরিবার চলে ।আাবার অনেকের মা/বাবার ঔষধের খরচ ও যোগার করতে হয়।

    যেহেতু সব কিছুর চেয়ে পরিবারের মঙ্গলই বড় কথা তাই এ ব্যাতিত অন্য যেকোন পথ থাকলেও সবাই পরিবারের মঙ্গলকেই বেছে নেয়। তেমনি শিশুরাও পরিবারের মঙ্গলের জন্য শিশুশ্রমকেই বেছে নেয়। যার ফল স্বরূপ তাদের প্রাথমিক শিক্ষা অপরিপূর্ণ থেকে যায়। সুতরাং পারিবারিক অস্বচ্ছলতাদূরীকরণ অত্যন্ত জরুরী ।

    দ্বিতীয়ত দরকার “শিক্ষার উপযুক্ত পরিবেশ”। একটি গাছ উপযুক্ত পরিবেশ না পেলে যেমন সঠিকভাবে বিকশিত হয় না, তেমনি শিক্ষার উপযুক্ত পরিবেশের অভাবে শিশুরা শিক্ষা গ্রহনের সুযোগ থাকা সত্বেও শিক্ষা গ্রহণের প্রতি অনুৎসাহী হয় । যার ফলাফল ছোট বেলা থেকেই শিশুরা শিক্ষা থেকে বিচ্যুত হয়ে বিভিন্ন অপকর্মে যুক্ত হয়। এই পরিবেশ কেবল বাবা মায়ের নিবির তত্বাবধান এবং পরিবারেই সম্ভব।

    তৃতীয়ত “শিক্ষায় মানুষের অবস্থা কেন্দ্রীক শ্রেণী বিন্যাস”। এ ধারণাটি প্রাথমিক শিক্ষার ক্ষেত্রে খুবই ভয়াবহ। কারণ, সমাজে এর কারণে শিক্ষার অনেক ভাগ ও ভেদাভেদ সৃষ্টি হয় যার পুরোটাই টাকার মাধ্যমে। যার বেশি টাকা তারা তাদের ছেলেমেয়েকে ইংলিশ মিডিয়াম বা ভালো মানের স্কুলে ভর্তি করে ভালো প্রাইভেট বা কোচিং করায়। অপরদিকে যাদের সামর্থ্য নেই তারা সরকারী স্কুলে এবং আধা-সরকারী স্কুলে।

    তারপরও শিক্ষার মান এসব স্কুলে অনেক ভালো থাকার কথা থাকলেও দু:খের বিষয় হল সরকারী বা আধা-সরকারী এসব স্কুলের কিছু অর্থলোভী শিক্ষক স্কুলে ভালো করে পড়ান না এবং নিজেরাই প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ ভাবে কোচিং ব্যবসা, প্রাইভেট ব্যবসা এবং বিভিন্ন প্রাইভেট শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেন।

    ফলে যাদের অর্থ আছে তারাই যথাযথ শিক্ষা পায় এবং এমন একটি ধারনা সমাজে ছড়িয়ে পরে টাকা যার ভালো শিক্ষা তার।যার কারণে নিম্নবিত্ত মানুষ জন হতাশাগ্রস্থ হয়ে ছেলেমেয়েদের শিক্ষাগ্রহণে অনুৎসাহী করে তোলে এবং ব্যবসা বা উপার্জনের দিকে ঠেলে দেয়। সুতরাং শিক্ষার মাঝে ভেদাভেদ দূুর করতে হবে।

    যদিও বর্তমান সরকার এর নানামুখী উদ্দ্যোগে ইতিমধ্যে অনেক সমস্যা দূর হয়েছে শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদান করা হচ্ছে কিন্তু তারপরও এসব প্রতিবন্ধকতার কারণে প্রতিনিয়ত প্রাথমিক শিক্ষা থেকে হাজার হাজার শিশু বিচ্যুত হয়ে শিশুশ্রমসহ নানা কর্মে লিপ্ত হচ্ছে। যারা ভবিষ্যৎ এ ভালোমন্দ বিচারে ব্যর্থ হয়ে দেশকে হুমকীর মুখে ঠেলে দিচ্ছে।

    লেখক-শিক্ষার্থী, যবিপ্রবি।

     

    Most Popular

    জানাজার নামাজের সংক্ষিপ্ত নিয়ম – DesheBideshe

    পৃথিবীতে অনেক বিষয় নিয়ে মানুষের মতবিরোধ হলেও জীবের মৃত্যু নিয়ে কারো কোনো মতবিরোধ নেই। ধর্ম-বর্ণ নির্বেশেষে সবাই এতে অভিন্ন মত পোষণ করেন। পবিত্র কোরআনের...

    আশাশুনির তুয়ারডাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এসএমসির সভা

    আহসান উল্লাহ বাবলু সাতক্ষীরা জেলা প্রতিনিধিঃ আশাশুনির তুয়ারডাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এসএমসি'র সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকালে তুয়ারডাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত...

    চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে পূজা মন্ডপ পরিদর্শনে অতিরিক্ত ডিআইজি।

    সুমন পল্লব, হাটহাজারী, চট্টগ্রাম : চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলা পূজা মন্ডপ পরিদর্শনে করেন চট্টগ্রাম রেন্জের পুলিশে অতিরিক্ত ডিআইজি মোঃজাকির হেসেন খাঁন । শনিবার ২৪অক্টোবর বিকেলে উপজেলা...

    গলায় ফাঁস দিয়ে এক শ্রমিকের আত্মহত্যা

    সুলতান আল একরাম,ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধিঃ ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর উপজেলায় সলেমানপুরে শ্রী সুজন কুমার (৩৫) নামে এক শ্রমিকের গলায় রশি দিয়ে আত্মহত্যর ঘটনা ঘটেছে। (২৪ অক্টোবর) শনিবার...