More
    Home Lead News 2 ক্ষতিপূরণের টাকা দিলেন দণ্ডপ্রাপ্ত এসআই -Deshebideshe

    ক্ষতিপূরণের টাকা দিলেন দণ্ডপ্রাপ্ত এসআই -Deshebideshe


    ঢাকা, ১৬ সেপ্টেম্বর- ইশতিয়াক হোসেন জনি হত্যা মামলায় রাজধানীর পল্লবী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) জাহিদুর রহমান জাহিদ আদালতের নির্দেশে ক্ষতিপূরণের দুই লাখ টাকা জমা দিয়েছেন।

    আজ বুধবার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে এসআই জাহিদের পক্ষে তাঁর পরিবার এই টাকা জমা দেয়।

    এসআই জাহিদের আইনজীবী ফারুক আহম্মেদ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘আদালত রায়ের সময় নির্দেশ দিয়েছিলেন, ভিকটিম জনির পরিবারকে দুই লাখ টাকা দেওয়ার। সেই নির্দেশ মোতাবেক আমরা দুই লাখ টাকা বাংলাদেশ ব্যাংকে জমা দিয়েছি। সেই টাকা জমার রশিদ আদালতে দাখিল করেছি।’

    আইনজীবী আরো বলেন, সেই টাকা এখন ভিকটিমের পরিবার আদালতের অনুমতি সাপেক্ষে তুলে নিতে পারবে।

    এর আগে গত ৯ সেপ্টেম্বর পুলিশ হেফাজতে মৃত্যুর মামলায় পল্লবী থানার এসআই জাহিদুর রহমান জাহিদ, সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) রাশেদুল ও কামরুজ্জামান মিন্টুকে তিনজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দেন আদালত। এ ছাড়া পুলিশের দুই সোর্স সুমন ও রাশেদকে সাত বছরের কারাদণ্ডাদেশ দেন আদালত। এটিই ছিল দেশে পুলিশি হেফাজতে মৃত্যুর ঘটনায় মামলার প্রথম রায়।

    মামলার নথি থেকে জানা যায়, ২০১৪ সালের ৭ আগস্ট তৎকালীন ঢাকা মহানগর দায়রা জজ জহুরুল হকের আদালতে নির্যাতন ও হেফাজতে মৃত্যুর অভিযোগ এনে নিহত জনির ছোট ভাই ইমতিয়াজ হোসেন রকি পল্লবী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়াউর রহমানসহ আটজনের বিরুদ্ধে একটি নালিশি মামলা করেন। পরে বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দেন।

    নির্দেশ অনুযায়ী, ঢাকা মহানগর হাকিম মারুফ হোসেন এ মামলার তদন্ত শেষ করেন। পরবর্তী সময়ে তিনি ২০১৫ সালের ১৭ ফেব্রুয়ারি পাঁচজনকে অভিযুক্ত ও পাঁচজনকে অব্যাহতির সুপারিশ করে ঢাকার মহানগর দায়রা জজ আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। তদন্তকালে পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) রাশেদুল ও কামরুজ্জামান মিন্টুকে নতুন করে আসামি হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করা হয়।

    অব্যাহতির সুপারিশ করা পাঁচ আসামি হলেন—পল্লবী থানার ওসি জিয়াউর রহমান, এসআই আবদুল বাতেন, রাশেদ ও শোভন কুমার সাহা এবং কনস্টেবল নজরুল।

    অন্যদিকে অভিযুক্ত পাঁচ আসামি হলেন—পল্লবী থানার এসআই জাহিদুর রহমান জাহিদ, এএসআই রাশেদুল ও কামরুজ্জামান মিন্টু, সোর্স সুমন ও রাশেদ।

    এ প্রতিবেদন ২০১৫ সালের ১৩ জুলাই ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কামরুল হোসেন মোল্লা আমলে নিয়ে পল্লবী থানার এএসআই রাশেদুল ও কামরুজ্জামান মিন্টু, পুলিশের সোর্স সুমন ও রাশেদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।

    মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, ২০১৪ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি মিরপুর ১১ নম্বর সেকশনের ইরানি ক্যাম্পে জনির বন্ধু বিল্লালের গায়ে হলুদ অনুষ্ঠান চলাকালে পুলিশের সোর্স সুমন অনুষ্ঠানে মেয়েদের সঙ্গে অশালীন আচরণ করেন। এ সময় জনি ও তাঁর ভাই পুলিশের সোর্স সুমনকে চলে যেতে অনুরোধ করেন। সোর্স সুমন ওই দিন চলে গেলেও পরদিন এসে আবার আগের মতো আচরণ করতে থাকেন। তখন জনি ও তাঁর ভাই তাঁকে আবারও চলে যেতে বললে সোর্স সুমন পুলিশকে ফোন করে তাঁদের ধরে নিয়ে যেতে বলেন।

    দুই ভাইকে ধরে নিয়ে যাওয়ার সময় এলাকার লোকজন পুলিশকে ধাওয়া দিলে পুলিশ পাল্টা গুলি ছুড়তে থাকে।

    আরও পড়ুন: মেয়েকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় মাকে জুতাপেটা, যুবক গ্রেপ্তার

    জনি ও তাঁর ভাইকে থানায় নিয়ে অমানবিক নির্যাতন করা হয়। পরে তাঁদের ছেড়ে দেয় পুলিশ। জনির অবস্থা খারাপ হলে তাঁকে ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থা আরো খারাপ হলে জনির মা তাঁকে ঢাকা মেডিকেল কলেজে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। জনির বাবা মৃত মোস্তফা কামাল। তিনি পেশায় গাড়িচালক এবং ইরানি ক্যাম্পেই থাকতেন। তাঁর এক ছেলে ও এক মেয়ে আছে।

    সূত্র: এনটিভি
    আডি/ ১৬ সেপ্টেম্বর



    Most Popular

    গাইবান্ধায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১

    সাকিব হাসান চৌধুরী সাম্য, গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি : গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে ব্যাটারি চালিত অটোভ্যান নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে আবুল ব্যাপারী নামে এক ভ্যান চালকের মৃত্যু হয়েছে। গত রোববার...

    শেরে বাংলা এ কে ফজলুল হকের ১৪৭-তম জন্মবার্ষিকী আজ

    ঢাকা, ২৬ অক্টোবর- শেরে বাংলা আবুল কাশেম ফজলুল হক অবিস্মরণীয় নাম, এক অসাধারণ ব্যক্তি। জাতি হিসেবে আমরা যে সবাই বাঙালি-এই ঐতিহাসিক সত্যের মূল...

    কিংবদন্তি ফুটবলার রোনালদিনহো করোনায় আক্রান্ত

    প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের হাত থেকে নিজেকে বাঁচিয়ে রাখতে পারলেন না ব্রাজিলের কিংবদন্তি ফুটবলার রোনালদিনহো গাউচো। ফুটবল অঙ্গনে করোনার থাবায় সবশেষ আক্রান্ত হলেন...

    শিশুদেরকে মসজিদে নেওয়া যাবে কি যাবে না?

    আমাদের মাঝে বিশেষ একটা ভূল ধারণা হলো ছোট ছোট শিশুদেরকে মসজিদে নেয়া যাবে না কিংবা গেলেও তাদেরকে সবার পিছনে অথবা একেবারে এক পাশেই...